দ্বিতীয়তলায় আসার পর

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের দ্বিতীয় তলায় হাইডিপেনডেন্সি ইউনিটের (এইচডিইউ) ২৬ নম্বর বেডে নাকে নল লাগানো ১১ বছরের সেলিম। হাসপাতালের রেজিস্টার খাতায় যার নাম লেখা – শাহীন। গেল ১৬ ডিসেম্বর বেলা ৩টার দিকে ফকিরাপুল এলাকায় এক রিক্সা চালকের দেওয়া আগুনে দগ্ধ হয় সে।

বিজ্ঞাপন

বৃহস্পতিবার (১৮ ডিসেম্বর)  এই প্রতিবেদক শিশুটির শারিরীক অবস্থার খোঁজ নিতে গেলে পাশের বেডের অন্য রোগীর স্বজন জানান, কোন কথা বলেনা বাচ্চাটা।  শুধু তাকিয়ে থাকে। নিজের  নাম বলে কখনো শাহিন, কখনো সেলিম। বাবা মার কথা জিজ্ঞাস করলে চুপ করে চেয়ে থাকে। হঠাৎ দু একবার শুধু বলে `আমার বাবা-মা কেউ নাই। রাস্তায় থাকি।’

 

এইচডিইউ  এর একজন সিনিয়র স্টাফ নার্স বলেন, দ্বিতীয়তলায় আসার পর থেকে শিশুটির কোন স্বজন পাইনি। খাওয়া থেকে শুরু করে সব কাজ সেবিকারাই করছে। ওষুধ খাওয়াচ্ছে, সুপ কিনে খাওয়াচ্ছে। এমনকি চিকিৎসকরাও ওর সব কিছু দেখশুনা করছে। যে ওষুধ হাসপাতালে নেই সেটা চিকিৎসকরা বাইরে থেকে কিনে আনছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *